http://shamsfood.com/

এমন ব্যাটিংয়ের কারণ কি?

ডেস্কঃ কলম্বো টেস্টের দ্বিতীয় দিনের শেষে মাত্র ৭ বলে ৩ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। পড়ন্ত বিকেলে এমন ছন্নছড়া ব্যাটিংয়ে এলোমেলো বাংলাদেশ। স্বস্তিতে থাকা বাংলাদেশ দিন শেষ করেছে রাজ্যের চাপ নিয়ে। কেন এমন ব্যাটিং সেই উত্তর পাওয়া গেল না করো কাছেই। ব্যাটিং পরামর্শক থিলান সামারাবিরা অবশ্য বললেন,‘আরও একটি উইকেট হারায়নি এজন্য আমাদের ভাগ্যবান ভাবা উচিত। এক সময়ের জন্য তো মনে হয়েছিল আমরা ছয় উইকেট হারিয়ে দিন শেষ করছি।’

শেষ ৪ ওভারে যা করেছিল বাংলাদেশ :
ইমরুল কায়েস: দিনের খেলা শেষ হতে আর বাকি মাত্র ৪ ওভার। বোলিংয়ে আসলেন লাকসান সান্দাকান। প্রথম দুই বল কোনো রান পেলেন না ইমরুল। দ্বিতীয় বলটি টার্নের বিপরীতে খেলতে গিয়েছিলেন ইমরুল। কিন্তু রান পাননি। তৃতীয় বলটি আউট সাইড অফ দ্য স্ট্যাম্পের উপর লেন্থ বল। কভার দিয়ে ড্রাইভ করে চার মারলেন ইমরুল। সান্দাকানের চোখে মুখে আফসোস! চতুর্থ বলটি শর্ট করলেন, রং হ্যান্ডে মারলেন গুগলি। তাতেই শেষ ইমরুল। শর্ট বল পুল করতে গিয়ে বল মিস করে ইমরুল এলবিডাব্লিউ।সাব্বির রহমান: তিন বল যেতে না যেতেই আউট সেট ব্যাটসম্যান সাব্বির। ৫৪ বলে সাব্বির নিজের উইকেট আত্মাহুতি দেন। লাকমালের শর্ট বল পুল করতে গিয়ে লেগ গালিতে ক্যাচ দেন সাব্বির।

সাকিবের প্রথম জীবন: সাকিবের ক্ষ্যাপাটে ব্যাটিং। আউট হয়েই বাড়ি ফিরতে হবে এমন তার ভাবনা! সান্দাকানের দিনের শেষ ওভারের শেষ বলে অফস্ট্যাম্পের বাইরের বল টেনে স্লগ সুইপ খেলতে গেলেন। ব্যাটের সঙ্গে ঠিকমত সংস্পর্শ না হওয়ায় বল গেল ডিপ মিড উইকেটে। সেখানে দাঁড়িয়ে ছিলেন উপল থারাঙ্গা। কিন্তু সহজ ক্যাচটি হাতছাড়া করেন থারাঙ্গা।

আবারও সাকিব: দিনের শেষ ওভারের চতুর্থ বল। লাকমালের শর্ট বল পুল করলেন সাকিব। সাকিবের খুব পছন্দের শট। বল গেল ডিপ স্কয়ার লেগে। খানিকটা দূরে দাঁড়িয়ে দিনেশ চান্দিমাল। কয়েক গজ দৌড়ে বল তালুবন্দি করতে ড্রাইভ দিয়েছিলেন। একটুর জন্য পারলেন না। আন্দ্রে রাসেলদের মত রিয়্যাল অ্যাথলেট হলে ক্যাচটা হয়ে যেত। দিনের শেষ প্রান্তে এসেও সাকিবের এমন শট। কোনোভাবেই মানতে পারছিলেন না ক্রিকইনফোর ধারাভাষ্যকার। বলেই দিলেন,‘বাংলাদেশ নিজেদের উইকেট আত্মাহুতি দিচ্ছে!’

তাইজুল ইসলাম: ওভারের পরের বলটিও একই রকম। ফরোয়ার্ড ডিফেন্স করতে গিয়ে নাইটওয়াচম্যান হিসেবে ব্যাটিংয়ে নামা তাইজুল ইসলাম এলবিডাব্লিউ। লেট অর্ডারে ব্যাটিং করা তাইজুল ইসলামের অবশ্য কোনো দোষ ছিল না। যাদুকরী বল করেছিলেন সান্দাকান।

সাকিব আল হাসান: তাইজুলের পর ব্যাটিংয়ে আসলেন সাকিব আল হাসান। হ্যাটট্রিক বল। পৃথিবীর যেকোনো ব্যাটসম্যান চাইবেন বলটিকে ঠিকমত দেখে শুনে খেলে দিতে। সেখানে সাকিব চায়নাম্যানের বিপক্ষে বেছে নিলেন স্লগ সুইপ।ব্যাটের নিচে লেগে ডিপ স্কয়ার ও ডিপ মিড উইকেট দিয়ে বল গেল বাউন্ডারিতে।

http://shamsfood.com/