http://shamsfood.com/

কোম্পানীগঞ্জে ছেলের বিরুদ্ধে বৃদ্ধ পিতাকে নির্যাতন করে ঘর ছাড়ার অভিযোগ কার্যকর ভূমিকা নেই স্থানীয় প্রশাসনের

কোম্পানীগঞ্জ-নোয়াখালী: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে মধ্যযুগীয় কায়দায় ৯৭ বছর বয়সী পিতার ওপর সন্তানের নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।
বসত ঘরের ভিটে নিয়ে বিরোধের জের ধরে, বুধবার সকাল ৮টায় উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ৫ নং ওয়ার্ডের চাপরাশি বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ বিষয়টি নিয়ে ওই এলাকায় হৈচৈ পড়ে যায়।

এ ঘটনায় ভূক্তভোগী পিতা জয়নাল আবেদীন (৯৭) বাদী হয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

অভিযোগ পরবর্তি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে কোম্পানীগঞ্জ থানার (ওসি) ও এক (এএসআই)। কিন্তু বিধিবাম, ঘটনার প্রায় ২দিন অতিবাহিত হলেও, বৃদ্ধ পিতা ন্যায় বিচার পাওয়ার আত্মনাদ করছে। তিনি আরো অভিযোগ করেন, সমস্যা সমাধানে কার্যকর ভূমিকা নেই স্থানীয় প্রশাসনের। বরং উল্টো অভিযুক্ত বড় ছেলে ভাড়াটে সন্ত্রসী ও পুলিশের নাম ভাঙ্গিয়ে ভয় দেখাচ্ছে তার পিতা এবং ছোট ভাইকে।

কোম্পানীগঞ্জ থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো.আসাদুজ্জামান বলছে, লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে সত্য, আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযুক্ত ছেলে তার পিতার সম্মতি ছাড়া পিতার বসত ঘর ভাংচুর করে মাঠির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে। পিতার অভিযোগের ভিত্তিতে ছেলের অর্থদন্ড করা হবে বলে (ওসি) মন্তব্য করেন।

বৃদ্ধের ছোট ছেলে আউয়াল মুঠোফোনে অভিযোগ করেন, ওসি সাহেব ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে যাওয়ার পর আমাদের ওপর হুমকি-ধামকি আরো বেড়ে গেছে।
এ ব্যাপারে প্রশাসনের দ্রুত কার্যকর হস্তক্ষেপ কামনা করছেন স্থানীয়রা।

নির্যাতিত পিতার লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, তার বড় ছেলে আবদুল মালেক মানিক (৫০), নাতি আবদুল্লাহ আল নোমান সাব্বির (১৯), পুত্রবধূ কামরুল নাহার হুক্কি (৪৫), পুত্র বধূ হোসনেয়ারা বেগম (৪২) ও তাদের ভাড়াটে সন্ত্রাসীরাসহ অনাধিকার প্রবেশ করে তার বর্তমান বসত ভিটার সম্পত্তি জবর দখল করে, ছারিচালা টিনের বসত ঘর ও ঘরে থাকা যাবতীয় আসবাব পত্র সম্পূর্ন ভাংচুর করে মাঠিতে মিশিয়ে দেয় এবং বসত ঘরের আসবাব পত্র ও টিন,কাঠ,বাঁশ লুটপাঠ করে নিয়ে যায়। এ সময় তিনি বাঁধা দিলে, তার বড় ছেলে,পুত্র বধূ, নাতি তাকে বড় ছেলের বিল্ডিংয়ের একটি কক্ষে আটক করে লাঠি সোটা দিয়া মারধর করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। এ সময় বৃদ্ধ পিতা তার ছেলে,পুত্রবধূ,নাতি’র মারধরের আঘাতে লুটিয়ে পড়ে।
তখন তার বড় ছেলে পা দিয়ে তার গলায় ছাপিয়া ধরে প্রাণে হত্যার চেষ্টা করে। বর্তমানে বয়োবৃদ্ধ পিতা বসত ঘর হারিয়ে খোলা আকাশের নিচে অবস্থান করছেন।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত আব্দুল মালেক মানিক’র মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানান,এটা আমাদের পারিবারিক ভাইয়ে-ভাইয়ের ঝামেলা। তবে তিনি তার পিতার উপর কোন নির্যাতন করেননি বলে দাবি করেন। কিন্তু বসতঘর থেকে পিতাকে উচ্ছেদের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি কোন সদুত্তর দিতে পারেননি।

http://shamsfood.com/