http://shamsfood.com/

নোয়াখালীতে মেলার নামে চলছে জুয়া, মদ ও অশ্লীল নৃত্যের রমরমা ব্যবসা

স্টাফ রিপোর্টার নোয়াখালী থেকে : নোয়াখালীর কবিরহাট উপজেলার ধানশালিক ইউনিয়নের মকবুল চৌধুরীর হাটে ৪ একর জুড়ে “মহান মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার” নাম দিয়ে চলছে জুয়া, মদ ও অশ্লীল নৃত্যের রমরমা ব্যবসা। মেলায় যাত্রা, ভ্যারাইটি শো” নাগর দোলা, মৃত্যুকূপ হোন্ডা, সার্কেসসহ বিভিন্ন ষ্টলের পাশাপাশি চলছে অবৈধ কূপন বিক্রয়।  জেলার নোয়াখালী সদর, কোম্পানীগঞ্জ, বেগমগঞ্জ, সেনবাগ, সুবর্ণচর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে সিএনজি ও অটোরিক্সা করে ফেরি করে আকর্ষণীয় ও ৮০ সিসি হুন্ডা, স্বর্ণের কানের দুল, মোবাইল ফোন, পানির ফিল্টারসহ দামী পুরস্কার দেওয়ার লোভ দেখিয়ে বিক্রয় করা হচ্ছে দৈনিক রবি লাকী কূপন। প্রতিদিনের ড্র প্রতিদিন ব্যানার, পোস্টার লাগিয়ে মাইকিং করে বিক্রি হচ্ছে লাকী কুপুন। এসব লাকী কূপন কিনে তরুণ ও সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ সর্বস্বান্ত হচ্ছে। দৈনিক লাকী কুপনের কর্ণধার মো: জুয়েল মিডিয়াকে জানান, মেলা কমিটিকে ভাড়া ও কমিশন দিয়ে পঞ্চম রজনীর ড্রয়ের পুরস্কার দিব রাত ১০ টা ৩০ মিনিটে। মিডিয়া পার্টনার সি.কে ভিশন। লাইভ সম্প্রসার দেখতে কোন সমস্যা হলে ক্যাবল অপারেটর মহিউদ্দিন কে কল করুন ০১৭৮৯০৯৪৩৩৫, ০১৬৩২১০৮২৫৪, ০১৮৭৬৯৫৪৩১৬ এই নাম্বারে। ঘরে বসে পরিবারকে সরাসরি লাইভ সম্প্রচার দেখতে পারবেন সি.কে ভিশন চ্যানেলে। পুন: প্রচার দেখবেন পরদিন বিকেল ৫টায়। বিস্তারিত জানতে ফোন করুন ০১৩১৮৮৯৩৯৯৯, ০১৯৭২০৩৩০৫১। এসব বন্ধের জন্য এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দৃষ্টি আকর্ষণ করলে গত ১৫ জানুয়ারি কবিরহাট উপজেলার নির্বাহী অফিসার সফিকুর রহমানের কাছে অভিযোগ করলে মিডিয়া জানতে চাইলে তিনি বলেন, আপনার নিউজ করলে বন্ধের ব্যাপারে চেষ্টা করব। বিভিন্ন সাদা পোষাকের লোকজন মেলার জুয়ার আসরের জন্য নির্মিত ১১২টি সামিয়ানা থেকে মোটা অংকের বখরা নেয় বলে এলাকাবাসী জানায়। জুয়াসহ অবৈধ কোন কর্মকান্ড না করতে মেলা কর্তপক্ষকে সতর্ক করেন বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। জনগণের দাবী অমান্য করে তারা আরো বীরদর্পে ১০ জানুয়ারি থেকে বসানো হয়েছে জুয়া, মদ ও অশ্লীল নৃত্যের আসর। সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, লাকী কূপন নামে চলছে টিকেট বিক্রয়। সার্কেস এর উত্তর পার্শ্বে সামিয়ানা দিয়ে ১১২টি জুয়ার বোর্ড বসিয়ে প্রতি বোর্ড থেকে নেওয়া হচ্ছে সর্বনি¤œ ৪০ হাজার টাকা। লাকী কূপন এর সার্কেস থেকে নেওয়া হচ্ছে প্রতিদিন ৫০ হাজার টাকা করে। এসব কিছুর মূল নেতৃত্বে রয়েছেন, ক্ষমাসীন দলের কিছু নেতা। অভিযোগ রয়েছে মেলার বিভিন্ন ষ্টলে প্রকাশ্যে বিক্রয় হচ্ছে বাংলা মদ, ইয়াবাসহ মরন নেশাসমূহ। এতে আসক্ত হয়ে পড়েছে তরুণ ও কিশোররা। তাদের লেখাপড়ার ক্ষতি হওয়ার পাশাপাশি সামাজিক অবক্ষয় ঘটছে বলে জানিয়েছে একাধিক অভিভাবক। এই ব্যাপারে কবিরহাট উপজেলার নির্বাহী অফিসার এ প্রতিবেদককে জানান, আমরা সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পেলে অবৈধ কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে অভিযান দিব। মেলায় আগত নজির আহমেদ নামে এক ব্যক্তি বলেন, সাধারণ জনগণকে উদ্ভুদ্ধ করার জন্য মেলা কর্তৃপক্ষ লাকী কূপন জুয়ার আসর সরাসরি স্থানীয় ক্যাবল টিভিতে প্রচার করা হচ্ছে। মেলা কমিটির সভাপতি স্থানীয় চেয়ারম্যান আবদুল মন্নান মুনাফ বলেন, ভোটের পরে তরুণ্যের তারুণ্যদের বিনোদনের জন্য প্রশাসনের অনুমতি নিয়েই এ মেলাটি শুরু করেছি। আগামী ২২ তারিখ পর্যন্ত এ মেলা চলার পর  রায় সাহেবের দরগায় চলবে। এ নিয়ে স্থাণীয় জনমনে ক্ষোভ ও অসন্তোষ চলছে।

http://shamsfood.com/