http://shamsfood.com/

পরিবেশ বিপর্যয়ের আশংকা নোয়াখালীতে মাটি কাটতে গিয়ে ডেবে গেছে দুটি ড্রেজার মেশিন, গুজবে হাজারো মানুষের ভিড়ে স্কুলের শাঁকু ভেঙ্গে দুর্ঘটনার আশংকা


নোয়াখালী প্রতিনিধি ঃ
নোয়াখালীর সদর উপজেলার নেয়াজপুর ইউনিয়নের জাহানাবাদ গ্রামে নোয়াখালী খালের পাশে শাহাদাত হোসেন বাবু নামে এক ব্যক্তি কৃষি জমিতে মাছের প্রজেক্ট করার জন্য মাটি কাটতে গিয়ে ডেবে গেছে দুটি ড্রেজার মেশিন। শনিবার দুপুরে সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গেলে দেখা যায়, শত শত মানুষ ভিড় করছে। স্থানিয়রা জানায়,দুইদিন আগে একটি ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি কাটতে গিয়ে মাটির নিচে ডেবে যায়, পরে ড্রেজার মেশিনটি উদ্ধার করতে গিয়ে অন্য আরেকটি মেশিনও ডেবে যায়, তবে হতাহতের কোন খবর পাওয়া যায়নি।

এ দৃশ্য দেখার জন্য হাজারো উৎসুক মানুষ ভিড় করছে। হাজারো মানুষের ভিড়ে স্থানীয় টিসিএম শিশু শিক্ষা নীড় (কেজি স্কুলের) শাঁকু ভেঙ্গে দুর্ঘটনার আশংকা দেখা দিয়েছে । অন্য দিকে দেখা দিয়েছে পরিবেশ বিপর্যয়ের আশংকাও।

এলাকাবাসী জানান,দীর্ঘদিন থেকে এলাকার মানুষ শুনে আসছে , এ এলাকায় সাত ভুতের আখড়া আছে , কয়েক বছর আগেও একই স্থানে একটি মহিষ মাটির নিচে ডেবে যায়। এদিকে এ ঘটনায় বিভিন্ন গুজব ছড়িয়ে পড়ায় এলাকাবাসির মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।এলাকাবাসী আরও জানান, প্রতিদিন সন্ধ্যার পর চলে এখানে মাদকসেবীদের আড্ডা।

টিসিএম শিশু শিক্ষা নীড় এর পরিচালনা কমিটির সভাপতি এডভোকেট মোঃ ওয়াজিউল্লাহ খোকন অভিযোগ করে বলেন, হাজার হাজার উৎসুক জনতার কারণে স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের চলাচলের একমাত্র বাঁশের শাঁকুটি হেলে গেছে, যে কোন সময় ভেঙ্গে দুর্ঘটনার আশংকা করেন তিনি।বাঁশের শাঁকুটি ভেঙ্গে গেলে শতাধিক কোমল মতি ছাত্র ছাত্রীদের স্কুলে আসা বন্ধ হয়ে যাবে।

এ বিষয়ে মাছের প্রজেক্টের মালিক শাহাদাত হোসেন বাবু জানান ,আমি আমার নিজস্ব জমিতে মাটি কেটেছি।কৃষি জমিতে মাটি কাটার মেশিন দিয়ে মাটি কাটতে পরিবেশ অধিদপ্তরের অনুমতি নিতে হয় কিনা তা আমার জানা নেই।

নেয়াজপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এইচ এম বাহাদুর জানান, কৃষি জমি নষ্ট করে মাটি কাটাতে পরিবেশের বিপর্যয় ঘটছে। অনুমতি ছাড়া এভাবে মাটি কাটা বেআইনি। বিভিন্ন গুজব শুনে হাজার হাজার মানুষ ভিড় জমাচ্ছে। এতে ঐ এলাকার একটি স্কুলের ছাত্র ছাত্রীদের পারাপারের জন্য খালের উপর তৈরি শাঁকুটি ভেঙ্গে যে কোন সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।এ বিষয়ে তিনি প্রশাসনিক ব্যবস্থা নেয়ার আহবান জানান।

পরিবেশ অধিদপ্তরের উপ- পরিচালক মোঃ আবদুল মালেক জানান, অনুমতি ছাড়া কেউ কৃষি জমির বালু উত্তলন বা মাটি কাটতে পারেননা । বিষয়টি খতিয়ে দেখে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুল ইসলাম সরদার জানান, বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

http://shamsfood.com/