http://shamsfood.com/

ফেসবুক বন্ধুর টানে ব্রাজিল থেকে অজপাঁড়াগায়ে

আমার বন্ধুর জন্যে সবচেয়ে বেশি যা করতে পারি তা হলো শুধু বন্ধু হয়ে থাকা। তাকে দেয়ার মতো কোন সম্পদ আমার নেই। সে যদি জানে যে, আমি তাকে ভালবেসেই সুখী, সে আর কোন পুরস্কারই চাইবে না। এ ক্ষেত্রে বন্ধুত্ব কি স্বর্গীয় নয় ?

দার্শনিক প্লেটোর এই বাণী স্মরণে রেখে বাংলাদেশের অজপাড়াগাঁয়ের এক তরুণ বাংলাদেশ থেকে ফেসবুকে বন্ধুত্ব গড়ে তোলেন ব্রাজিলের এক তরুণীর সাথে।

দুবছর বছরের সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের টানে ব্রাজিল কন্যা ছুটে এসেছেন বাংলাদেশে। ব্রাজিলের ঐ তরুণীর নাম জেইসা ওলিভেরিয়া সিলভা (২৯)। তিনি ব্রাজিলের একটি সরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করেন বলে জানান। তিনি ব্রাজিলের বাহিয়া ব্রাসিলের বাসিন্দা। তাকে এক নজর দেখার জন্য গ্রামের সাধারন মানুষগুলো প্রচ- ভিড় জমাচ্ছেন।

বাংলাদেশী এই তরুণের নাম সঞ্জয় ঘোষ (২৮)। তিনি রাজবাড়ী জেলার বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুরের বলাই ঘোষের ছেলে। সঞ্জয় ঘোষ শ্যামলী পরিবহনের ঢাকা-কলকাতা রুটের সুপারভাইজার।

সঞ্জয় ঘোষ বলেন, ‘দুই বছর আগে ফেসবুকে পরিচয় হয় ব্রাজিলের জেইসার সাথে। তারপর গড়ে ওঠে বন্ধুত্বের সম্পর্ক। এক সময় জেইসা জানতে চায় বাংলাদেশ সম্পর্কে। আমি বাংলাদেশ সম্পর্কে ওকে জানাই এবং কিছু দর্শনীয় স্থানের ছবি পাঠাই। সেই ছবিগুলো দেখে জেইসা বাংলাদেশে আসার আগ্রহ প্রকাশ করলে আমি তাকে বাংলাদেশে আসার আমন্ত্রণ জানাই। আর তাতে সে রাজি হয়ে যায়। মূলত ও আমাকে খুব বিশ্বাস করে। তা ছাড়া ও খুব সরল প্রকৃতির। আর তাই ও সুদুর ব্রাজিল থেকে ছুটে এসেছে বাংলাদেশে, এসেছে এই অজপাঁড়া গায়ে।’

সঞ্জয় বলেন, ‘সোমবার রাতে ঢাকায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে এসে পৌঁছানোর পর ওকে আমার গ্রামের বাড়িতে নিয়ে আসি। রাতেই ওকে নিয়ে ঢাকায় চলে যাওয়ার কথা রয়েছে। বুধবার থেকে ওকে ঢাকায় এবং বিভিন্ন স্থানে দর্শনীয় স্থানগুলো ঘুরিয়ে দেখাবো।’

ব্রাজিল কন্যা জেইসা তার অভিব্যক্তি প্রকাশ করে বলেন, ‘এই গ্রামটি আমার খুব ভাল লেগেছে। এখানকার মানুষ এবং       আমার বন্ধুর পরিবারের সবাই খুব ভাল। তাছাড়া খাবারগুলোও অসাধারন। তবে আবহাওয়ার কারণে নিজেকে খুব দুর্বল মনে হচ্ছে। গ্রামের এতো মানুষ আমাকে দেখতে এসেছে বিষয়টি আমি খুব উপভোগ করছি।’

http://shamsfood.com/